BD 24

    
    
    
    

    
    
    
    
    
    
    
    
    

    
    
    

    
    
    
    
    
    





 

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হ্যাক হয়ে গেছে, বাংলাদেশ নেই আর বাঙালির কাছে

Sohag Sheikh ৬ নভেম্বর, ২০১৬ ফিচার
img

 

মুক্তি যুদ্ধের চেতনা, মুক্তি যুদ্ধের পক্ষের শক্তি, ১৯৭২ সালের সংবিধানে ফিরে যাওয়া ইত্যাদি শব্দগুলো আজ বড় গোলমেলে ঠেকছে। শত সংগ্রামে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশে কার কত টুকু অধিকার সে হিসেবও আজ বড় গোলমেলে।একমাত্র মুসলিম ছাড়া আর কোন জাতি গোষ্ঠির এই দেশে কোন অধিকার আছে কি নেই সেটা বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

 ধরা হয়,দীর্ঘ লড়াই-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে অর্জিত বাঙালি  জাতীয় চেতনার সকল ইতিবাচক উপাদানের নির্যাস ’৭২-এর সংবিধান। মুক্তিযুদ্ধের পরপরই রচিত হওয়ায় বাঙালির  দীর্ঘদিনের  স্বপ্ন, সাধনা ও সংগ্রামসহ মহান মুক্তি-সংগ্রামের মর্মবাণী ও চেতনা প্রতিফলিত হয়েছে তাতে। ৭২ সালের সংবিধানের প্রস্তাবনায় লেখা হয়, 'আমাদের রাষ্ট্রের অন্যতম মূল লক্ষ্য হবে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে এমন এক শোষণমুক্ত সমাজতান্ত্রিক সমাজ-প্রতিষ্ঠা  যেখানে সব নাগরিকের জন্য  রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সাম্য  নিশ্চিত হইবে।'  'জাতীয়তাবাদ, সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতা,  রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি বলিয়া পরিগণিত হইবে।' এবং ' সাম্যবাদী সমাজ লাভ নিশ্চিত করিবার উদ্দেশ্যে সমাজতান্ত্রিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থার প্রতিষ্ঠা করা হইবে।' 'রাষ্ট্রের অন্যতম দায়িত্ব হইবে মেহনতি মানুষকে  এবং জনগণের অনগ্রসর অংশসমূহকে সকল প্রকার শোষণ হইতে মুক্তি প্রদান করা।'

সংবিধান সংশোধনের প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় এবং চতুর্থ সংশোধনী  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবদ্দশায় হয়েছে।বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর সামরিক জান্তা জিয়া লক্ষ শহীদের রক্তের সঙ্গে বিশ্বাস ঘাতকতা করে পঞ্চম সংশোধনীর মাধ্যমে ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’ ও ‘সমাজতন্ত্র’কে বাদ দেয়। এতে একদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করা হয়েছে, অন্যদিকে সামরিক শাসনকে বৈধতা দিয়ে দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় স্থায়ী ক্ষত সৃষ্টি করা হয়েছে।

’৭২ এর সংবিধানে রাষ্ট্রের মূলনীতি হিসেবে গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, বাঙ্গালী জাতীয়বাদ ও সমাজতন্র গৃহীত হয়েছিলো। সংবিধান থেকে ধর্মনিরপেক্ষতা ও সমাজতন্ত্র ছেঁটে ফেলা হয়েছে অনেক আগেই। জাতীয়তাবাদের সাথে ধর্মের মিশ্রণ ঘটিয়ে জাতীয়তাবাদের সংজ্ঞাকেই বদলে ফেলা হয়েছে।’

জনগণকে ৭২-এ্রর সংবিধানে ফিরে যাবার  প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় আসে এই সরকার।৭২-এর সংবিধানে ফিরে যাবার তোড়জোরও শুরু করে। 

জিয়ার  ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত বিএনপির আলোচনা সভায় মওদুদ আহমদ বলেছিলেন, চেষ্টা করেও সরকারের পক্ষে ’৭২-এর সংবিধানে ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়। ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলবেন, আবার বিসমিল্লাহও রাখবেন, এটা তো হতে পারে না।সংবিধানে বিসমিল্লাহ থাকবে- আবার একই সময়ে অন্যান্য মন্ত্রীরা বলছেন যে, তারা ধর্মনিরপেক্ষতায় ফিরে যাবেন । একদিকে বিসমিল্লাহ রাখা আবার অন্যদিকে ধর্ম নিরপেক্ষতায় ফিরে যাওয়া ?   

হাইকোর্টের রায়ে যখন সংবিধানের বিগত কিছু সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করা হলো তখন মনে হচ্ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পুনরুদ্ধার হবে। কিন্তু সরষের মধ্যে ভূত কার জানাছিল? ভোটের হিসেব মেলাতে গিয়ে জগা খিচুড়ি পাকিয়ে ফেলে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী বললেন,বিসমিল্লাহ থাকবে এছাড়া, জামায়াত বা ইসলামপন্থী দলগুলো থাকবে কি থাকবে না তা দেখবে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের আইন মেনে জামায়াত রাজনীতি করলে তাতে সরকারের কোনো আপত্তি নেই। হয়তো তিনি নিজেও জানেন যে দেশে, জামাত, আওয়ামীলীগ, বিএনপি, নামে মাত্র ভিন্ন। চেতনা গত কোন পার্থক্য নেই দলগুলোর নেতা কর্মীদের মধ্যে। তাই জামাত নিষিদ্ধ করা আর না করার তেমন কোন সুফল কুফল নেই।

  

জনগণকে ৭২-এ্রর সংবিধানে ফিরে যাবার যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল সরকার তা রক্ষার নামে এক মস্ত প্রহসন হলো। যার ফলশ্রুতিতে এই সংখ্যা লঘুদের উপর একের পর এক হচ্ছে হামলা, যার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ মিলছে আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীর এমন কি মন্ত্রী পর্যন্তও। তার পরেও আমরা বলি আওয়ামীলীগ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি। প্রকৃত বিচারে যদি বলি  আওয়ামীলীগ ক্রমশ প্রমাণ করছে তারা কেবল মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দান কারী একটা দল। আর মুক্তি যুদ্ধের চেতনার কথা যদি বলি তা ৭২-এর সংবিধান কাটাকাটি করার পর থেকেই হ্যাক হয়ে গেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এখন কেবলই একটা তামাশায় পরিণত হয়েছে।

তাইতো ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সনদে চাকরি নেওয়ার অভিযোগে ১৯ পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। চাকরি নেয়া ছাড়াও চাকরিরত অবস্থায় মুক্তিযোদ্ধা কোটায় অন্যান্য সুযোগ, যেমন চাকরির মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়ার অভিযোগও পাওয়া যায় ৪ সচিবের বিরুদ্ধে ।

 
টাকা দিলে সত্যিকারের মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেট, তালিকা ভূক্তি, ভাতা সব মেলে। রাজাকারের সন্তানের আবার সরকারী চাকরিও মেলে। এখন রাষ্ট্রীয় কোন সভায় কোরআন তেলাওয়াতের পাশাপাশি অন্য ধর্ম গ্রন্থ পাঠ না করলে কোন অন্যায় হবে না। স্কুল কলেজের অনুষ্ঠানাদিতে ছেলেমেয়েরা এখন গীতা পাঠ করে না। অনলাইনে ইসলাম ধর্ম অবমাননারকরে কোন ছবি পোষ্ট দিলে তাঁর বিচার আদালত করবে তো বটেই। তাঁর আগেই কোন একজনের অপরাধের দায়ে সমস্ত জাতি-গোষ্ঠির ধর্মশালা নিপাত করে দেবার অধিকার জনগনের থাকবে। জনপ্রতিনিধিরাও সেখানে স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ করবেন।

স্বপ্নের স্বাধীন বাংলাদেশের এই অবস্থা দেখে জানি না পরপারে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চোখ থেকে  অশ্রুপাত হচ্ছে না রক্তপাত হচ্ছে। স্মৃতিসৌধ, বদ্ধভূমি, শহীদ মিনার সব যেন উপহাসের হাসি হাসছে আমায় দেখে। তুই বাঙালি? সত্যিই বাঙালি।- সোহাগ 

এই পোস্টের বিপরীতে পোর্টালের কোন দায়ভার নেই। সকল দায়ভার লেখকের। 

 

    

সম্পর্কিত আরো পোস্ট

আমাদের ফেইসবুক

রাশিফল

  • sagittarius

    মেষ

  • sagittarius

    বৃষ

  • sagittarius

    মিথুন

  • sagittarius

    কর্কট

  • sagittarius

    সিংহ

  • sagittarius

    কন্যা

  • sagittarius

    তুলা

  • sagittarius

    বৃশ্চিক

  • sagittarius

    মকর

  • sagittarius

    কুম্ভ

  • sagittarius

    মীন

  • sagittarius

    ধনু

  • মেষ 22 January 2017

    কোনো ব্যাপারে অনিশ্চয়তায় ভুগতে পারেন। প্রতিপক্ষকে আয়ত্তে আনতে আরো অপেক্ষা করতে হবে। বন্ধু কিংবা সহকর্মীর পেছনে অর্থ ব্যয় হবে। সন্তানদের লেখাপড়া নিয়ে উদ্বেগ বাড়বে।

  • বৃষ 22 January 2017

    তুচ্ছ কারণে এই রাশির জাতকরা আজ হয়রানির শিকার হতে পারেন। বুদ্ধি দিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারলে লাভবান হবেন। সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন কর্মক্ষেত্রে।

  • মিথুন 22 January 2017

    অন্যের কথায় নির্ভর না করে নিজের সিদ্ধান্ত নিজেই নিন। বিক্ষিপ্তভাবে কাজ করে সময় নষ্ট করলে দিনশেষে খেসারত দিতে হবে। প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠতে আরো ধীরস্থির হতে হবে। 

  • কর্কট 22 January 2017

     

    আজ অসাবধানতার কারণে কোনো জিনিস হারাতে পারে। পুরনো পাওনা আদায়ে নতুন বিড়ম্বনায় পড়বেন। পারিবারিক ঝামেলা এড়াতে আরো কৌশলী হওয়ার দরকার। 

  • সিংহ 22 January 2017

     

    এই রাশির জাতকদের আজ কর্মক্ষেত্রে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা আছে। শিল্প, সাহিত্য কিংবা বিনোদনমূলক কাজে জড়িয়ে যেতে পারেন। আজ গান শুনতে মন চাইবে। যাত্রা শুভ। 

  • কন্যা 22 January 2017

    বাড়িতে অতিথির আগমন ঘটবে। দিনশেষে প্রশংসা মিলবে রাজনীতিবিদদের। কর্মস্থলে কোনো সহকর্মী ঝামেলা পাকাতে পারেন। ভুল বোঝাবুঝি হবে প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে। 

  • তুলা 22 January 2017

    স্থলপথের যাত্রায় সতর্ক থাকুন। কোথাও থেকে কোনো সুখবর পেতে পারেন। কাজকর্মের অগ্রগতি হবে। ভালো যাবে পারিবারিক সম্পর্কও। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।

  • বৃশ্চিক 22 January 2017

    আজ আত্মীয়ের সংখ্যা বাড়বে। পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়বে শিক্ষার্থীদের। কর্মক্ষেত্রে পারিপার্শ্বিক প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হবে।

  • মকর 22 January 2017

    নতুন কোনো কাজের সন্ধান মিলবে। স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না, পুরনো কোনো ব্যাধিতে ভুগতে পারেন। যানবাহনের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। দুর্ঘটনার আশঙ্কা আছে। বিনোদন শুভ।

  • কুম্ভ 22 January 2017

    অর্থনৈতিক সমস্যায় বিচলিত হওয়া ঠিক হবে না। বরং ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবিলা করাই ভালো। এ ছাড়া কাজকর্মে মনোযোগ দিতে হবে। অন্যকে খুশি করতে বাড়াবাড়ি করবেন না। 

  • মীন 22 January 2017

    সামাজিক কাজে এই রাশির জাতকরা প্রশংসা পাবেন। ঠিকঠাক দায়িত্ব পালনের কারণে আজ আপনার দায়িত্ব আরো বেড়ে যাবে। পারিবারিক ঝামেলায় উদ্বেগ বাড়বে। দূরের যাত্রা শুভ। 

  • ধনু 22 January 2017

    নতুন গৃহসামগ্রী কিনতে গিয়ে অনেকগুলো টাকা খরচ হবে। বিদেশি সংস্থা বা ব্যক্তির সঙ্গে চুক্তি হবে কারো কারো। বিনোদন ও রোমান্স শুভ। স্ত্রীকে আরো বেশি সময় দিন। দূরের যাত্রা শুভ। 

ফটো গ্যালারি