পানি আছে নতুন আবিষ্কৃত সাত গ্রহে! প্রানের অস্তিত্ব জানান দিতে পারে সহসা! বদলে যাবে হিসেব নিকেশ।

Sohag Sheikh ১৪ মার্চ, ২০১৭ তথ্য-প্রযুক্তি
img

অনেক বেশি পানি আছে নতুন আবিষ্কৃত সাত গ্রহে!সে দিক বিচারে সেখানে প্রানের অস্তিত্ব জানান দিতের পারে সহসা! তাই যদি হয়, বদলে যাবে অনেক হিসেব নিকেশ। কিছুদিন আগে স্টিফেন হকিং বলেছিলেন, কেয়ামতের আগেই মানুষ তাঁর বিকল্প বাসস্থান খুঁজে নিতে পারবে। তবে কি তাঁর কথা সত্যি হতে চলেছে। যেহেতু জলের অস্তিত্ব থাকলেই জীবের অস্তিত্ব সম্ভব, সেহেতু দেখে নেওয়া যাক নতুন আবিষ্কৃত সাত গ্রহের কি অবস্থা। তিন ভাগ জল আর এক ভাগ স্থল। এই নিয়ে আহ্লাদে আট খানা হওয়ার দিন বোধহয় শেষ হয়ে এল পৃথিবীর!

জল-পাল্লায় পৃথিবীকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে, এমন সাত-সাতটি নতুন ‘পৃথিবী’ ধরা দিয়েছে আমাদের চোখে। নতুন সেই সাত ‘পৃথিবী’ রীতিমতো টইটুম্বুর হয়ে আছে তরল জলে। অতলান্ত, আদিগন্ত তরল জলের সাগর, মহাসাগরে। আর সেই জল ঢাকা নেই কোনও পুরু বরফের চাদরের তলায়। সেই জল বরফ হয়ে তো নেই-ই, এমনকী, বরফ-গলা জলও (আইস ওয়াটার) তা নয়। যে তাপমাত্রা পেলে, বায়ুমণ্ডলের যতটা চাপ থাকলে পৃথিবীর সাগর, মহাসাগরের জল তরল অবস্থায় থাকতে পারে, ঠিক সেই তাপমাত্রা আছে বলেই সদ্য আবিষ্কৃত নতুন সাত ‘পৃথিবী’র জলও রয়েছে একেবারে তরল অবস্থায়। ভূপৃষ্ঠেই (সারফেস)।

কোনও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া প্রথম সাক্ষাৎকারে এ কথাই জানিয়েছেন নতুন সাত ‘পৃথিবী’র মূল আবিষ্কর্তা বিশিষ্ট জ্যোতির্বিজ্ঞানী মিশেল গিলন।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি ওয়াশিংটনে নাসার সদর দফতরে বসে যে ৫ বিজ্ঞানী সগর্বে ঘোষণা করেছিলেন নতুন সাত ‘পৃথিবী’র আবিষ্কারের খবর, বেলজিয়ামের লিগে বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞান, ভূপদার্থবিদ্যা ও সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগের এফএনআরএস রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট মিশেল গিলন তাঁদের অন্যতম।

বেলজিয়াম থেকে আনন্দবাজারকে দেওয়া এক্সক্লুসিভ ই-মেল সাক্ষাৎকারে মিশেল গিলন লিখেছেন, ‘‘প্রায় ৪৬০ কোটি বছর আগে যে ভাবে জন্ম হয়েছিল আমাদের এই বাসযোগ্য গ্রহটির, হয়তো ঠিক সেই ভাবেই গড়ে ওঠেনি এই মিল্কি ওয়ে গ্যালাক্সিতেই আমাদের খুব কাছে থাকা (দূরত্ব মাত্র ৩৯ আলোকবর্ষ) নক্ষত্রমণ্ডল ‘ট্রাপিস্ট-১’-এর সদ্য আবিষ্কৃত সাতটি ভিনগ্রহের। আমরা এখনও পর্যন্ত যতটা পর্যবেক্ষণ করতে পেরেছি, তাতে মনে হয়েছে, ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্র থেকে অনেক অনেক দূরেই (সূর্য থেকে যতটা দূরত্বে রয়েছে বৃহস্পতি, শনি, নেপচুনের মতো গ্রহগুলি) জন্ম হয়েছিল এই নতুন সাত ‘পৃথিবী’র। নক্ষত্রমণ্ডলের যে-এলাকাটাকে বলে ‘প্রাইমোর্ডিয়াল প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্ক’। যা ভরা ছিল ঘন গ্যাসে আর জমাট বাঁধা বরফে। প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্ক আসলে ঘন গ্যাসের এমন একটা খুব পুরু চাকতি, যেখান থেকে গ্রহ, উপগ্রহের জন্ম হয়। আমাদের মনে হয়েছে, এই বহু দূরের প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্ক থেকে বেরিয়ে এসে পৃথিবীর আকারের সাতটি গ্রহ তাদের নক্ষত্রের (ট্রাপিস্ট-১) খুব কাছে এসে গিয়েছিল। সেই দূরত্ব, যাকে জ্যোতির্বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলে, ‘গোল্ডিলক্‌স জোন’ বা ‘হ্যাবিটেবল জোন’। মানে, নক্ষত্র থেকে কোনও গ্রহ যে দূরত্বে থাকলে সেখানে প্রাণের জন্ম হতে পারে বা সেই প্রাণ সহায়ক পরিবেশ পেতে পারে বিকাশের জন্য। আমাদের সৌরমণ্ডলে যেমন মঙ্গল, শুক্র আর পৃথিবী রয়েছে ‘গোল্ডিলক্‌স জোন’-এ।’’

নতুন সাত ‘পৃথিবী’র আবিষ্কারের ঘোষণার পরপরই মহাকাশে নাসার পাঠানো স্পিৎজার টেলিস্কোপ তো বটেই, মহাকাশে থাকা আরও দু’টি সুবিশাল টেলিস্কোপ-হাবল আর কেপলারও নজর রাখতে শুরু করেছে ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্রমণ্ডলের ওপর। আগামী বছর নাসা মহাকাশে পাঠাচ্ছে আরও বড়, আরও দক্ষ টেলিস্কোপ। যার নাম- জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ (জেডব্লিউএসটি)। তাই গিলনের আশা, ‘‘হয়তো আগামী বছর বা তার পরের বছরের মধ্যেই আমরা জানতে পারব ঠিক কতটা জলে ভাসছে নতুন সাত ‘পৃথিবী’র বুক।’’

আনন্দবাজারকে দেওয়া একান্ত ই-মেল সাক্ষাৎকারে গিলন বলেছেন, ‘‘এখনও এই তুলনাটা করার জায়গায় আমরা পৌঁছতে পারিনি। এখনও নতুন সাত ‘পৃথিবী’র বায়ুমণ্ডল, আবহাওয়া, পরিবেশ, বায়ুমণ্ডলে কী কী রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে, সে সব সম্পর্কে আমাদের ধারণাটা কিছুটা ভাসা ভাসা। নতুন সাত ‘পৃথিবী’ যে আমাদের পৃথিবীর মতো বাসযোগ্য হতে পারে, হয়ে উঠতে পারে, এই কথাটা আমরা বলতে পারছি, এখনও পর্যন্ত পাওয়া তথ্যাদির ওপর নির্ভর করেই। আর তাত্ত্বিক দৃষ্টিকোণ থেকে। এখনও পূর্ণাঙ্গ ভাবে ওই নতুন সাত ‘পৃথিবী’কে পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হয়নি। তবে আপাতত মনে হয়েছে, ‘প্রক্সিমা সেনটাওরি-বি’ ভিনগ্রহটি থেকে সদ্য আবিষ্কৃত সাতটি গ্রহ অনেক বেশি ‘গেম চে়ঞ্জার’। যা এই ব্রহ্মাণ্ডের অন্য মুলুকে বাসযোগ্য গ্রহ খোঁজার লক্ষ্যে আমাদের এত দিনের গবেষণার মোড় সত্যি-সত্যিই ঘুরিয়ে দিতে পেরেছে। কারণ, এই গ্রহগুলি যে-দূরত্বে রয়েছে, তাতে আমাদের হাতে থাকা প্রযুক্তি দিয়ে খুব সহজেই গ্রহগুলির বায়ুমণ্ডল, আবহাওয়া আমরা ঠিক ভাবে বুঝে উঠতে পারব বলে মনে করছি। আরও আশার কথা, এই গ্রহগুলির ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা শূন্য থেকে ১০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা ৩২ ডিগ্রি থেকে ২১২ ডিগ্রি ফারেনহাইটের মধ্যে। মানে, যে তাপমাত্রায় জল খুব সহজেই থাকতে পারে তরল অবস্থায়। আর প্রাণের জন্ম বা তার বিকাশের পক্ষেও এই তাপমাত্রাটা একেবারেই আদর্শ। ‘প্রক্সিমা সেনটাওরি-বি’ ভিনগ্রহের ক্ষেত্রে সেই সুবিধাটা নেই। হাবল, কেপলার, স্পিৎজার ও জেমস ওয়েব টেলিস্কোপ এ ব্যাপারে আমাদের খুব সাহায্য করবে। ফলে আশা করছি, দু’-এক বছরের মধ্যেই আমরা জানতে পারব এই নতুন সাত ‘পৃথিবী’ আমাদের মতোই বাসযোগ্য কি না।’’অধ্যাপক মিশেল গিলন বলছেন, ‘‘না। তেমন কোনও সম্ভাবনাই নেই। অনেকগুলি কেন, বৃহস্পতি, শনি, নেপচুনের মতো বিশাল চেহারার গ্যাসে ভরা গ্রহ ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্রমণ্ডলে আদৌ আছে বলে আমার মনে হয় না। কারণ, অত বিশাল চেহারার গ্রহ তৈরি হওয়ার জন্য যতটা ভারী হতে হয়, ওই নক্ষত্রমণ্ডলের প্রাইমোর্ডিয়াল প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্ক ততটা ভারী বা পুরু নয়। ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্র আসলে খুবই ঠাণ্ডা নক্ষত্র। চেষ্টা করেও যা আমাদের সূর্যের মতো বড় নক্ষত্র হয়ে উঠতে পারেনি। এগুলিকে বলে ‘বামন নক্ষত্র’ বা ‘ডোয়ার্ফ স্টার’। আমাদের সৌরমণ্ডল যখন তৈরি হচ্ছে, তখন তার প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্ক খুব ভারী আর পুরু ছিল বলেই বৃহস্পতি, শনি, নেপচুনের মতো ভারী ভারী বিশাল চেহারার গ্রহগুলি জন্মাতে পেরেছিল। এই প্রোটোপ্ল্যানেটারি ডিস্কটাই অতটা ভারী আর পুরু নয় ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্রমণ্ডলে। তাই বৃহস্পতি, শনি, নেপচুনের মতো বিশাল বিশাল ভারী গ্যাসে ভরা গ্রহ ‘ট্রাপিস্ট-১’ নক্ষত্রমণ্ডলে আদৌ জন্মাতেই পারেনি বলে আমাদের মনে হয়েছে।’’

মিশেল গিলনের জবাব, ‘‘এখনও বলতে পারছি না। জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ দিয়ে ওই গ্রহগুলির বায়ুমণ্ডল, আবহাওয়ার পর্যবেক্ষণের পরেই আমরা সেটা ঠিক ভাবে বুঝতে পারব। যাই ঘটুক না কেন, সামনের দু’-এক বছরে আমরা অবাক করে দেওয়ার মতো কিছু ঘটনা ঘটবে বলে আশা করছি।’’- তথ্যসূত্রঃ আনন্দবাজার

 

সম্পর্কিত আরো পোস্ট

আমাদের ফেইসবুক

রাশিফল

  • sagittarius

    মেষ

  • sagittarius

    বৃষ

  • sagittarius

    মিথুন

  • sagittarius

    কর্কট

  • sagittarius

    সিংহ

  • sagittarius

    কন্যা

  • sagittarius

    তুলা

  • sagittarius

    বৃশ্চিক

  • sagittarius

    মকর

  • sagittarius

    কুম্ভ

  • sagittarius

    মীন

  • sagittarius

    ধনু

  • মেষ 22 January 2017

    কোনো ব্যাপারে অনিশ্চয়তায় ভুগতে পারেন। প্রতিপক্ষকে আয়ত্তে আনতে আরো অপেক্ষা করতে হবে। বন্ধু কিংবা সহকর্মীর পেছনে অর্থ ব্যয় হবে। সন্তানদের লেখাপড়া নিয়ে উদ্বেগ বাড়বে।

  • বৃষ 22 January 2017

    তুচ্ছ কারণে এই রাশির জাতকরা আজ হয়রানির শিকার হতে পারেন। বুদ্ধি দিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারলে লাভবান হবেন। সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন কর্মক্ষেত্রে।

  • মিথুন 22 January 2017

    অন্যের কথায় নির্ভর না করে নিজের সিদ্ধান্ত নিজেই নিন। বিক্ষিপ্তভাবে কাজ করে সময় নষ্ট করলে দিনশেষে খেসারত দিতে হবে। প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠতে আরো ধীরস্থির হতে হবে। 

  • কর্কট 22 January 2017

     

    আজ অসাবধানতার কারণে কোনো জিনিস হারাতে পারে। পুরনো পাওনা আদায়ে নতুন বিড়ম্বনায় পড়বেন। পারিবারিক ঝামেলা এড়াতে আরো কৌশলী হওয়ার দরকার। 

  • সিংহ 22 January 2017

     

    এই রাশির জাতকদের আজ কর্মক্ষেত্রে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা আছে। শিল্প, সাহিত্য কিংবা বিনোদনমূলক কাজে জড়িয়ে যেতে পারেন। আজ গান শুনতে মন চাইবে। যাত্রা শুভ। 

  • কন্যা 22 January 2017

    বাড়িতে অতিথির আগমন ঘটবে। দিনশেষে প্রশংসা মিলবে রাজনীতিবিদদের। কর্মস্থলে কোনো সহকর্মী ঝামেলা পাকাতে পারেন। ভুল বোঝাবুঝি হবে প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে। 

  • তুলা 22 January 2017

    স্থলপথের যাত্রায় সতর্ক থাকুন। কোথাও থেকে কোনো সুখবর পেতে পারেন। কাজকর্মের অগ্রগতি হবে। ভালো যাবে পারিবারিক সম্পর্কও। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।

  • বৃশ্চিক 22 January 2017

    আজ আত্মীয়ের সংখ্যা বাড়বে। পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়বে শিক্ষার্থীদের। কর্মক্ষেত্রে পারিপার্শ্বিক প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হবে।

  • মকর 22 January 2017

    নতুন কোনো কাজের সন্ধান মিলবে। স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না, পুরনো কোনো ব্যাধিতে ভুগতে পারেন। যানবাহনের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। দুর্ঘটনার আশঙ্কা আছে। বিনোদন শুভ।

  • কুম্ভ 22 January 2017

    অর্থনৈতিক সমস্যায় বিচলিত হওয়া ঠিক হবে না। বরং ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবিলা করাই ভালো। এ ছাড়া কাজকর্মে মনোযোগ দিতে হবে। অন্যকে খুশি করতে বাড়াবাড়ি করবেন না। 

  • মীন 22 January 2017

    সামাজিক কাজে এই রাশির জাতকরা প্রশংসা পাবেন। ঠিকঠাক দায়িত্ব পালনের কারণে আজ আপনার দায়িত্ব আরো বেড়ে যাবে। পারিবারিক ঝামেলায় উদ্বেগ বাড়বে। দূরের যাত্রা শুভ। 

  • ধনু 22 January 2017

    নতুন গৃহসামগ্রী কিনতে গিয়ে অনেকগুলো টাকা খরচ হবে। বিদেশি সংস্থা বা ব্যক্তির সঙ্গে চুক্তি হবে কারো কারো। বিনোদন ও রোমান্স শুভ। স্ত্রীকে আরো বেশি সময় দিন। দূরের যাত্রা শুভ। 

ফটো গ্যালারি