গত ৫ বছরে এ বনে বাঘের সংখ্যা কমেছে ৩৩৪টি

Sohag Sheikh ২৯ জুলাই, ২০১৭ প্রকৃতি ও পরিবেশ
img

শিকার ও দেহাবশেষ পাচার, আবাসস্থল ধ্বংস করে রাস্তাঘাট-বসতবাড়ি ও কলকারখানা নির্মাণ, প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ ৭ কারণে বাংলাদেশসহ বিশ্বে বাঘের সংখ্যা কমছে। ওই সব কারণে ভালো নেই সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগারও। গত ৫ বছরে এ বনে বাঘের সংখ্যা কমেছে ৩৩৪টি। সর্বশেষ হিসাবে সুন্দরবনে বাঘ আছে ১০৬টি। অথচ ২০১০ সালে ছিল ৪৪০টি।
 

বাঘের আবাস আছে পৃথিবীতে এমন দেশ ১৩টি। এর মধ্যে দেশসহ ৯টি দেশেই বাঘের নিরাপদ আবাসস্থল গড়ে উঠতে পারেনি। ২০১০ সালের হিসাবে, ১৩ দেশে ৪ হাজার ১৭১টি বাঘ ছিল। ২০১৫ সালের বিশ্বে বাঘ পাওয়া গেছে ৩ হাজার ৮৯০টি। সেই হিসাবে ৫ বছরে ২৮১টি বাঘ কমেছে। অথচ রাশিয়ার সেন্টপিটার্সবার্গ শহরে অনুষ্ঠিত ২০১০ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম বিশ্ব বাঘ সম্মেলনে ২০২২ সালের মধ্যে পৃথিবীতে বাঘের সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। এমন বাস্তবতায় আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব বাঘ দিবস। ওই ১৩টি দেশ ২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর দিবসটি পালন করে আসছে। দিবস উপলক্ষে আজ বাগেরহাটে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এতে প্রধান অতিথি  সেবে উপস্থিত থাকবেন। একই মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবসহ স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এতে উপস্থিত থাকবেন।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ৫ বছরে বিশ্বে বাঘ সবচেয়ে বেশি কমেছে বাংলাদেশে, ৩৩৪টি। তবে সরকারি উদ্যোগ ও শুভ পদক্ষেপে গত কয়েক বছরে মানুষ ও বাঘের সংঘাত আগের চেয়ে অনেক কমেছে। এ কারণে পিটুনিতে বাঘের মৃত্যু যেমন কমেছে, তেমনি বাঘের আক্রমণে মানুষের মৃত্যুও হ্রাস পেয়েছে।

বন সংরক্ষক জাহিদুল কবির যুগান্তরকে জানান, সুন্দরবনের বাঘের সুষ্ঠু সংরক্ষণ ও প্রবৃদ্ধির প্রধান অন্তরায়গুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। অবাধ বিচরণ ও আবাসস্থল নির্বিঘœ করতে নেয়া হয়েছে যথাযথ ব্যবস্থা। বাঘের নিরাপদ প্রজনন পরিবেশ তৈরির কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। বাঘ শুমারি শেষ হলে ফলাফল পাওয়া যাবে।

গত ৫ বছরে বিশ্বে বাঘের জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে কম্বোডিয়া চিহ্নিত হয়েছে। বাংলাদেশ প্রাণিবিজ্ঞান সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও বনবিভাগের সাবেক উপপ্রধান বন সংরক্ষক ড. তপন কুমার দের মতে, ২০১০ সালে কম্বোডিয়ায় ৫০টি বাঘ ছিল। কিন্তু ২০১৫ সালে দেশটি একেবারেই বাঘশূন্য হয়ে গেছে। অপরদিকে চীনে ২০১০ সালে বাঘ ছিল ৪৫টি। ২০১৫ সালের হিসাবে পাওয়া গেছে মাত্র ৭টি। নিরাপদ আবাসস্থলের জন্য রাশিয়া, ভারত, নেপাল এবং ভুটানে ৫ বছরে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে। মিয়ানমারে বাঘের সংখ্যা অপরিবর্তিত আছে।

ড. তপন কুমার দে তার এক লেখায় উল্লেখ করেন, বাঘের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ এখনও সনাতনী ওষুধ, শ্যাম্পু ও টনিকের জন্য বিশাল বাজার আছে চীনসহ কয়েকটি দেশে। এ কারণে বাঘ শিকারের প্রতি এক শ্রেণীর মানুষের আগ্রহ আছে। তারা বাঘ শিকার ও দেহাবশেষ (চামড়া, হাড় ইত্যাদি) পাচার করে। অপরদিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাঘ সমৃদ্ধ বনাঞ্চল ধ্বংস করে গড়ে উঠছে ভারি শিল্প-কলকারখানা, রাস্তাঘাট, জনবসতি, হাট-বাজার ইত্যাদি। বাঘ সমৃদ্ধ বনাঞ্চলের মধ্য দিয়ে যানবাহন ও নৌ চলাচল বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশের সুন্দরবনে বাঘের আবাসস্থল নির্বিঘœ করা না গেলে সংরক্ষণ, প্রজনন প্রক্রিয়া ও প্রবৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হয়ে বিলুপ্তির দিকে যাবে। যদিও বনবিভাগ বলছে, সুন্দরবনে বাঘের অবাধ বিচরণ ও যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সব বাধা চিহ্নিত করে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এর সুফলও পাওয়া গেছে। গত ২ বছরে বাঘের আক্রমণে কোনো মানুষ মারা যাননি। গত বছর মানুষের হাতে কোনো বাঘ মরেনি। অবশ্য ২০১২ ও ২০১৩ সালেও মানুষের হাতে কোনো বাঘ মরেনি। পরের ২ বছর ২টি করে ৪টি বাঘ মানুষের পিটুনিতে মরেছে। বাঘ মৃত্যুর আরেকটি কারণ হচ্ছে বার্ধক্য। তবে ২০১৩ সালের পর এখন পর্যন্ত বার্ধক্যের কারণে কোনো বাঘ মরেনি। ২০১১ ও ২০১২ সালে পরপর ২ বছরে ৭টি বাঘ এ কারণে মারা গেছে। সংশ্লিষ্টরা জানান, সরকার বাঘের সমীক্ষা পুনরায় শুরু করেছে। একটি প্রকল্পের অধীনে গত বছরের শেষের দিকে সুন্দরবনের সাতক্ষীরা অঞ্চলে ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে বাঘ গণনা হয়েছে। সেই হিসাব বর্তমানে চূড়ান্তকরণ চলছে।

এর আগে ২০১৫ সালের ক্যামেরা পদ্ধতিতে বাঘ গণনার জরিপ প্রকাশ করা হয়। এতে দেখা যায়, বাংলাদেশের সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ১০৬টি। ২০০৪ সালে বন বিভাগ এনএনডিপির সহায়তায় প্রথমবারের মতো বাঘের পায়ের ছাপ গুণে বাঘের সংখ্যা নির্ধারণ করেছিল ৪৪০টি। ২০০৬ সালে ক্যামেরা পদ্ধতিতে গণনা করে ২০০টি বাঘ পাওয়া যায়। এতে দেখা যায়, গত ১১ বছরে বাঘের সংখ্যা কমতে কমতে অর্ধেকে নেমে এসেছে। অথচ ভারতে ৫ বছরে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে। ২০১০ সালে দেশটিতে বাঘ ছিল ১৭০৬টি, ২০১৫ সালে তা দাঁড়ায় ২২২৬টিতে।

সম্পর্কিত আরো পোস্ট

আমাদের ফেইসবুক

রাশিফল

  • sagittarius

    মেষ

  • sagittarius

    বৃষ

  • sagittarius

    মিথুন

  • sagittarius

    কর্কট

  • sagittarius

    সিংহ

  • sagittarius

    কন্যা

  • sagittarius

    তুলা

  • sagittarius

    বৃশ্চিক

  • sagittarius

    মকর

  • sagittarius

    কুম্ভ

  • sagittarius

    মীন

  • sagittarius

    ধনু

  • মেষ 22 January 2017

    কোনো ব্যাপারে অনিশ্চয়তায় ভুগতে পারেন। প্রতিপক্ষকে আয়ত্তে আনতে আরো অপেক্ষা করতে হবে। বন্ধু কিংবা সহকর্মীর পেছনে অর্থ ব্যয় হবে। সন্তানদের লেখাপড়া নিয়ে উদ্বেগ বাড়বে।

  • বৃষ 22 January 2017

    তুচ্ছ কারণে এই রাশির জাতকরা আজ হয়রানির শিকার হতে পারেন। বুদ্ধি দিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারলে লাভবান হবেন। সহকর্মীদের সহযোগিতা পাবেন কর্মক্ষেত্রে।

  • মিথুন 22 January 2017

    অন্যের কথায় নির্ভর না করে নিজের সিদ্ধান্ত নিজেই নিন। বিক্ষিপ্তভাবে কাজ করে সময় নষ্ট করলে দিনশেষে খেসারত দিতে হবে। প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠতে আরো ধীরস্থির হতে হবে। 

  • কর্কট 22 January 2017

     

    আজ অসাবধানতার কারণে কোনো জিনিস হারাতে পারে। পুরনো পাওনা আদায়ে নতুন বিড়ম্বনায় পড়বেন। পারিবারিক ঝামেলা এড়াতে আরো কৌশলী হওয়ার দরকার। 

  • সিংহ 22 January 2017

     

    এই রাশির জাতকদের আজ কর্মক্ষেত্রে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা আছে। শিল্প, সাহিত্য কিংবা বিনোদনমূলক কাজে জড়িয়ে যেতে পারেন। আজ গান শুনতে মন চাইবে। যাত্রা শুভ। 

  • কন্যা 22 January 2017

    বাড়িতে অতিথির আগমন ঘটবে। দিনশেষে প্রশংসা মিলবে রাজনীতিবিদদের। কর্মস্থলে কোনো সহকর্মী ঝামেলা পাকাতে পারেন। ভুল বোঝাবুঝি হবে প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে। 

  • তুলা 22 January 2017

    স্থলপথের যাত্রায় সতর্ক থাকুন। কোথাও থেকে কোনো সুখবর পেতে পারেন। কাজকর্মের অগ্রগতি হবে। ভালো যাবে পারিবারিক সম্পর্কও। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।

  • বৃশ্চিক 22 January 2017

    আজ আত্মীয়ের সংখ্যা বাড়বে। পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়বে শিক্ষার্থীদের। কর্মক্ষেত্রে পারিপার্শ্বিক প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হবে।

  • মকর 22 January 2017

    নতুন কোনো কাজের সন্ধান মিলবে। স্বাস্থ্য খুব একটা ভালো যাবে না, পুরনো কোনো ব্যাধিতে ভুগতে পারেন। যানবাহনের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। দুর্ঘটনার আশঙ্কা আছে। বিনোদন শুভ।

  • কুম্ভ 22 January 2017

    অর্থনৈতিক সমস্যায় বিচলিত হওয়া ঠিক হবে না। বরং ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবিলা করাই ভালো। এ ছাড়া কাজকর্মে মনোযোগ দিতে হবে। অন্যকে খুশি করতে বাড়াবাড়ি করবেন না। 

  • মীন 22 January 2017

    সামাজিক কাজে এই রাশির জাতকরা প্রশংসা পাবেন। ঠিকঠাক দায়িত্ব পালনের কারণে আজ আপনার দায়িত্ব আরো বেড়ে যাবে। পারিবারিক ঝামেলায় উদ্বেগ বাড়বে। দূরের যাত্রা শুভ। 

  • ধনু 22 January 2017

    নতুন গৃহসামগ্রী কিনতে গিয়ে অনেকগুলো টাকা খরচ হবে। বিদেশি সংস্থা বা ব্যক্তির সঙ্গে চুক্তি হবে কারো কারো। বিনোদন ও রোমান্স শুভ। স্ত্রীকে আরো বেশি সময় দিন। দূরের যাত্রা শুভ। 

পাঠক মতামত

প্রযুক্তির বিষয়ে অভিজ্ঞতার অভাবে বিরোধিতা হচ্ছে। বললেন, জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু আপনি কি একমত?
ভোট দিয়েছেন জন
হ্যাঁ
না
মন্তব্য নেই

ফটো গ্যালারি